প্রসঙ্গ যখন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা

Private University.. Is it really an educational institution! এই প্রশ্নটা যেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে আসা ছাত্র-ছাত্রীদের সকল উদ্দীপনায় এক মুহূর্তে জল ঢেলে দেয়। কেউ বলে, “কি হবে এখানে পড়ে? চাকরি বাকরি তো কপালে জুটবে না“। কেউ বা আবার প্রাইভেটে পড়ুয়াদের গায়ে বাবা-মার বখাটে সন্তানের সীলমোহর ও লাগিয়ে দেয়। এখানে নাকি সার্টিফিকেট বিক্রি হয়, এখানখার পড়ুয়ারা উচ্ছৃঙ্খল, উচ্ছন্ন। সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের 3rd graded ছাত্রটিও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের 1st class student এর থেকে ভাল, মেধাবী!
আচ্ছা, একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশুনো করাটাই কি সব? নাকি চান্স পাওয়া মানুষগুলো স্বশরীরে স্বর্গে যাবে? হতেই পারে কেউ সরকারিতে চান্স পেলো না, তাতে কি সে মানুষটাও খারাপ হয়ে যায়! আমার অভিজ্ঞতা বলে ভর্তি পরীক্ষায় বিভিন্ন বিষয়ের প্রশ্ন থাকে। কমার্সের ছাত্রকেও অনেক সময় সাইন্সের অঙ্ক করতে হয়। যে সাহিত্য ভালবাসে, পড়তে চায়, তাকেও অঙ্ক বিজ্ঞানের পাহাড় পেরিয়ে সাহিত্যকে কাছে পেতে হয়। আমার আজও স্পষ্ট মনে আছে আমি ভর্তি পরীক্ষায় ইংরেজী এবং বাংলায় up 20 number পেয়েছিলাম। এবং এটা বলতেও লজ্জা নেই যে ওই একই পরীক্ষায় অঙ্ক বিজ্ঞানে fail করেছিলাম।
শুধু আমি নই, এরকম আরো অনেকে আছে যারা বেসরকারিতে পড়ে এবং ভাল আছে। কে বলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা হয় না? কে বলে টাকা ফেললেই ঝুড়ি ভর্তি নম্বর পাওয়া যায়! দু এক জনের কু-কর্মের ফল সবাই ভুগবে তা তো হতে পারে না। একটিবার আসুন, স্ব-চক্ষে দেখে যান তার পর না হয় বলুন, কিন্তু তার ধার ধারে কে।
ঢেঁকির ধানভানার মত এসব মানুষগুলো তাদের কথা বলতেই থাকবে, তাই শুধু শুধু হতাশ বা বিষন্ন হওয়ার কিছু নেই। যে যোগ্য সে তার মূল্য ঠিক পেয়ে যাবে।
আর রইল বাকি চাকরি বাকরি। তো, চাকরি করাটাই জীবনের সবকিছু নয়, শিক্ষাটাই আসল। সু-শিক্ষা ই পারে একটি জাতিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে, নতুন কিছু করার সাহস যোগাতে।
কাজেই, সুশিক্ষা অর্জন করাই মূল লক্ষ্য হওয়া উচিত। শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নয়।
 

লিখেছেনঃ
দীপশিখা কুণ্ডু
শিক্ষার্থী, ইংরেজি বিভাগ
নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি

You May Also Like