কেশবপুরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে দু’টি বাল্য বিয়ে বন্ধ

আব্দুল্লাহ আল ফুয়াদ, কেশবপুর (যশোর) ॥

যশোরের কেশবপুরে শুক্রবার দুপুরে ও বৃহস্পতিবার রাতে দু’টি বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দিয়েছেন প্রশাসন। এ সময় এক কনের পিতাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মঙ্গলকোট ইউনিয়নের চুয়াডাঙ্গা গ্রামের জহুরুল ইসলামের মেয়ে খাদিজা খাতুন জুঁইর (১৪) শুক্রবার দুপুরে বিয়ের আয়োজন করেন তার পরিবার। বর পার্শ্ববর্তী গৌরীঘোনা ইউনিয়নের ভেরচি গ্রামের সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে সাইদুর রহমান। জুঁই বুড়ুলি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষা দিয়ে বৃহস্পতিবার শেষ করেছেন। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বাল্য বিয়ে বন্ধ করার জন্য থানার পুলিশকে জানায়। থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থলে যেয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন এবং মেয়ের পিতা জহুরুল ইসলামকে আটক করে নিয়ে আসেন।

অপর দিকে উপজেলার বিদ্যানন্দকাটি গ্রামের লুৎফর রহমানের মেয়ে সোনিয়া খাতুনের (১৩) শুক্রবার গোপনে বিয়ের আয়োজন করেন তার পরিবার। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিদ্যানন্দকাটি ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেনকে বিয়ে বন্ধ করার নির্দেশ দেন। কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (চলতি দায়িত্বে) মো. কবীর হোসেন জানান, দু’টি বাল্য বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মেয়ের বিয়ে না দেওয়ার মুচলেকা দিয়েছেন ওই দুই পরিবার।

You May Also Like