বড়েঙ্গা কেশবপুরে জনতার মুখোমুখি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক

কেপি নিউজ: রবিবার সকালে কেশবপুরের মঙ্গলকোট ইউনিয়নের বড়েঙ্গা গ্রামে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠানে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক জনতার মুখোমুখি হয়ে তাদের চাওয়া পাওয়ার কথা শুনেন। নিজ গ্রামে নিজের বাড়িতে উঠান বৈঠাকে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু মুক্তির জন্য দেশ স্বাধীন করেছিলেন। কিছু লোক ছাড়া সবায় মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। সেই লোকজন এখনো এই দেশকে চায় না। বাংলাদেশ গরীব, অশিক্ষিত, অনুন্নত দেশ হিসেবে পৃথিবীর বুকে পরিচিত ছিল। উন্নয়নের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রমান করেছেন বাংলাদেশ পিছিয়ে নেই। প্রধানমন্ত্রী নয় বছর নিরলসভাবে কাজ করে যে উন্নয়ন করেছেন তা আপনাদের ধরে রাখতে হবে।

৫নং মঙ্গলকোট ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি জনাব মোঃ বজলু রহমান সরদারের সভাপতিত্বে উঠান বৈঠক শুরু হয়। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সাবেক এল এম এ আব্দুল হালিম মোড়ল, জেলা পরিষদের সদস্য হাসান সাদেক, চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন, আব্দুস সামাদ, আব্দুর রশিদ, আল হেলাল, গৃহবধু রুবি, করিমুন নেছা, রেহেনা খাতুন, ইসমাইল সরদার, আবুল হোসেন, শিক্ষক মুকল, মুনসুর আলী, প্রমুখ।

বৈঠকে এলাকার নারী পুরুষ, ছাত্র শিক্ষক, তাদের বসত বাড়ি, ছেলে মেয়ের চাকুরি, রাস্তাসহ নানা সমস্যার কথা তুলে ধরে ইসমাত আরা সাদেক বলেন, কেউ বেকার থাকুক, গৃহহারা থাকুক প্রধানমন্ত্রী তা চান না। বড়েঙ্গা গ্রাম আমার কাছে তীর্থস্থানের মতো। আমার স্বামী প্রয়াত শিক্ষামন্ত্রী সাদেক সাহেবের বাড়ি এই গ্রামে। এই গ্রামসহ কেশবপুরের সকলের আকাঙ্খা পুরুন করবো। আপনারা শুধু আমাকে একটু সময় দেবেন। আমি কেশবপুরে রাস্তা করেছি, খাল, নদ-নদী, ব্রীজ সংস্কার করেছি। প্রায় সকলের বাড়ি বিদ্যুত দিয়েছি। আগামীতে সকল উন্নয়ন করা হবে। খাল খনন হবে নদী খনন হবে। আমি চেষ্টা করছি আরও উন্নয়ন করার জন্য। কিন্তু সব চাহিদা ৪ বছরে পুরুন হয় না। সরকার প্রশিক্ষন দিয়ে সাবলম্বী করার চেষ্টা করছে।

উঠান বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানূর রহমান, উপজেলা আ’লীগের সহসভাপতি তপন কুমার ঘোষ, মহিলা লীগের রেবা ভৌমিক, চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল, সোহরাব হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক, আব্দুল লতিফ রানা, প্রমুখ।

You May Also Like