কেশবপুরের বিভিন্ন হাটবাজারে অবাধে চলছে জুয়ার কেরামবোর্ড খেলা

আব্দুল্লাহ আল ফুয়াদ, কেশবপুর (যশোর) ॥

কেশবপুরে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে বিভিন্ন হাটবাজারে জুয়ার কেরামবোর্ড খেলা চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় দলীয় নেতাকর্মীদের ছত্রছায়ায়  উপজেলার বিভিন্ন ছোটবড় বাজারের বেশীর  ভাগ চায়ের দোকানে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত জুয়ার কেরামবোর্ড খেলা চলছে বলে জানা গেছে। বিভিন্ন বয়সের যুবক ও স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্ররা ঝুঁকে পড়ছে ওই জুয়া খেলায়। যার ফলে ধীরে ধীরে লেখাপড়া থেকে দূরে সরে যাচ্ছে ওই সকল ছাত্ররা। প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেয়া হলেও দলীয় নেতাকর্মীদের চাপে পরবর্তীতে পুলিশ তাদেরকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হচ্ছে বলে সূত্র জানায়।

জানা গেছে, উপজেলার কলাগাছি , গৌরীঘোনা, ভেরচী, পাঁজিয়া, গড়ভাঙ্গা, নতুনহাট, জানপুর, সাতবাড়িয়া, বেগমপুর, ত্রিমোহিনী, সরসকাটী, চিংড়া, সাগরদাঁড়ি, হাসানপুর, প্রতাপপুর, ভালুকঘর, শ্রীরামপুর, শ্রীফলা বাজারসহ অধিকাংশ বাজারের চায়ের দোকানে কেরাম বোর্ডের নামে পুরোদমে চলছে হাজার হাজার টাকার জুয়া খেলা। এ সমস্ত জুয়া খেলায় অংশ নিচ্ছেন বিভিন্ন স্থান থেকে আসা যুবক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উঠতি বয়সী শিক্ষার্থীরা।

শ্রীরামপুর গ্রামের আয়শা বেগম জানান, আমার ছেলে বিদেশ থেকে আসার পর আমাকে খাওয়া দাওয়া দেয় না। সে ‘স’ মিলের কাজের শেষে চায়ের দোকানে গিয়ে জুয়ার কেরামবোর্ড খেলায় মেতে থাকে।

কন্দর্পপুর গ্রামের সাইফুল ইসলাম জানান, জুয়া খেলার কারণে এলাকার ব্যাপক চুরির হিড়িক পড়ে গেছে। এ সমস্ত ছিচকে চোরেরা রাতের আধারে বাইসাইকেল, মোটর চুরি করে স্বল্প দামে তা বিক্রি করে জুয়া খেলাসহ মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছে।

ভুক্তভোগী এলাকাবাসীরা  জুয়ার কেরামবোর্ড খেলা বন্ধ করার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ।

এ বিষয়ে কেশবপুর থানার তদন্ত অফিসার শাহজাহান আহমেদ জানান, ইতিপূর্বে জুয়ার কেরামবোর্ড মালিকসহ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। রাজনৈতিক নেতাদের তদবিরের কারণে তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে আমাদের বাধাগ্রস্থ  হতে হচ্ছে।

You May Also Like