যশোরে ৯ আগস্ট থেকে স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম শুরু

আব্দুর রহিম রানা, যশোর ||

যশোর সদরে স্মার্টকার্ড বিতরণের সময়সূচি প্রস্তুত করেছে সদর উপজেলা নির্বাচন অফিস। সময়সূচি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য ঢাকায় নির্বাচন কমিশন দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে। সরকারি সিটি কলেজ কেন্দ্রে থেকে বিতরণ শুরু হয়ে আগামী বছরের শুরুতে বসুন্দিয়ায় গিয়ে শেষ হবে এই বিতরণ কর্মসূচি। আগস্টের ৯ তারিখ থেকে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ড এবং ক্যান্টনমেন্ট জোনসহ ১৫টি ইউনিয়নে সফলতার সাথে কার্ড বিতরণ করার জন্য ১৩০ দিনের যাবতীয় পরিকল্পনা সম্পন্ন করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

সদর উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, ৯ আগস্ট যশোর সরকারি সিটি কলেজে স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম শুরু হবে। এদিন ১ নং ওয়ার্ডবাসীদের মাঝে স্মার্টকার্ড দেয়া হবে। সরকারি ছুটির দিন বাদে ১নং ওয়ার্ডবাসীদের মাঝে কার্ড বিতরণ চলবে ১৬ আগস্ট পর্যন্ত। ১৭ আগস্ট থেকে ১৯ আগস্ট পর্যন্ত সম্মিলনি ইন্সটিটিউশন প্রাঙ্গনে ২ নং ওয়ার্ডবাসীদের মাঝে স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। একই স্থানে ২৫ আগস্ট থেকে ২৭ আগস্ট পর্যন্ত ৩নং ওয়ার্ডবাসীদের কার্ড বিতরণ কার্যক্রম চলবে। শহরের মুসলিম একাডেমিতে ২৮ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর ৪ নং ওয়ার্ডের, ৩ সেপ্টেম্বর থেকে ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৫নং ওয়ার্ডের, ৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১১ সেপ্টেম্বর ৬নং ওয়ার্ডের স্মার্টকার্ড প্রদান করা হবে। এমএসটিপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডবাসীদের স্মার্টকার্ড প্রদান করা হবে। এই স্কুলে ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ১৬ সেপ্টেম্বর ৭নং ওয়ার্ডের, ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর ৮নং ওয়ার্ডের এবং ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ২৪ সেপ্টেম্বর ৯নং ওয়ার্ডের স্মার্টকার্ড প্রদান করা হবে।

এদিকে ক্যান্টনমেন্ট এরিয়াসহ যশোরের ১৫টি ইউনিয়নে ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে পর্যায়ক্রমে স্মার্টকার্ড বিতরণ চলবে। যশোর ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড অফিসে ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর ক্যান্টনমেন্ট এরিয়ার অধিবাসীদের মধ্যে স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। হৈবৎপুরের বারীনগরে অবস্থিত আব্দুল বারী বহুমূখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও নাটুয়াপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে হৈবৎপুর ইউনিয়নবাসীর মাঝে কার্ড বিতরণ করা হবে। ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ২ আগস্ট পর্যন্ত আব্দুল বারী বহুমুখী বিদ্যালয়ে এবং ৩ ও ৪ অক্টোবরে নাটুয়াপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এই ইউনিয়নের অধিবাসীরা স্মার্টকার্ড হাতে পাবেন। লেবুতলা ইউনিয়নের স্মার্টকার্ড লেবুতলা সরকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অক্টোবরের ৬ থেকে ৯ তারিখ পর্যন্ত বিতরণ করা হবে। ইছালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১০ থেকে ১৪ অক্টোবর স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হবে। দুই স্পটে নওয়াপাড়া ইউনিয়নের স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ১৫ থেকে ২১ অক্টোবর এবং ঘুরুলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ২২ ও ২৩ অক্টোবর স্মার্টকাড সংগ্রহ করতে পারবেন ইউনিয়নবাসী। উপশহরের নিউটাউন বালিকা বিদ্যালয়ে উপশহর ইউনিয়নের স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। ২৪ থেকে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ৩ দিনব্যাপী উপশহরবাসীরা স্কুল প্রাঙ্গন থেকে স্মার্টকার্ড গ্রহণ করতে পারবেন। কাশিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২৮ অক্টোবর থেকে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত কাশিমপুর ইউনিয়নের স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হবে। চুড়ামনকাটি মাধ্যমিক ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৬ থেকে ১৩ নভেম্বর, দেয়াড়ায় আমদাবাদ ডিগ্রি কলেজে ১৪ থেকে ২০ নভেম্বর স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। ২২ নভেম্বর থেকে ৭ দিনব্যাপী আরবপুর ইউনিয়নবাসীদের মাঝে স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। মুক্তেশ্বরী মাধ্যমিক ও ভেকুটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২২ নভেম্বর থেকে ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত এই কার্ড গ্রহণ করতে পারবেন ইউনিয়নবাসী। চাঁচড়া ইউনিয়নে দুই স্পটে ৮ দিনব্যাপী স্মার্টকার্ড বিতরণের কাজ চলবে। মাহিদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডিসেম্বরের ১ তারিখ থেকে ৪ তারিখ পর্যন্ত এবং ভাতুড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ভাতুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডিসেম্বরের ৫ তারিখ থেকে ৯ তারিখ পর্যন্ত চাঁচড়া ইউনিয়নবাসীদের মাঝে কার্ড বিতরণ কার্যক্রম চলবে। এছাড়া সতীঘাটা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১০ ডিসেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর রামনগর ইউনিয়ন, হামিদপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১৯ ডিসেম্বর থেকে ২৮ ডিসেম্বর ফতেপুর ইউনিয়ন, মুন্সেফপুর মাধ্যমিক বদ্যিালয়ে ২৯ ডিসেম্বর থেকে ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত কচুয়া ইউনিয়ন, রূপদিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৫ জানুয়ারি থেকে ১২ জানুয়ারি নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। দুই স্পটে ৭ দিনব্যাপী বসুন্দিয়া ইউনিয়নের স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হবে। ১৩ জানুয়ারি থেকে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত রূপদিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এবং ১৬ জানুয়ারি থেকে ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত জঙ্গলবাঁধাল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এই কার্ড বিতরণ চলবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ জানান, ‘আগামী মাস থেকে সুষ্ঠুভাবে স্মার্টকার্ড বিতরণের লক্ষে আমার খসড়া সময়সূচি তৈরি করেছি। খসড়া সময়সূচি কেন্দ্রীয় নির্বাচন অফিসে পাঠানো হয়েছে। ৫/৬ আগস্টের মধ্যে সময়সূচি চূড়ান্ত হয়ে আসলে বাকি কাজ সম্পাদনে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেয়া হবে। তবে সমস্ত পরিকল্পনা ইতোমধ্যে গ্রহণ করা হয়েছে।’

ন্যাশনাল আইডি (এনআইডি) হারিয়ে গিয়ে থাকলে স্মার্ট কার্ড কীভাবে পাবেন প্রসঙ্গে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির জানান, ‘হারিয়ে যাওয়ার পর নির্ধারিত ফিস নির্বাচন কমিশন বরাবর জমা দিয়ে থাকলে তার চালানকপি সংরক্ষণে রাখতে হবে। নির্ধারিত দিনে ওই ব্যক্তি নির্ধারিত স্পটে গিয়ে চালানের রশিদ জমা দিয়ে স্মার্টকার্ড গ্রহণ করতে পারবেন।’

অন্যান্য উপজেলায় স্মার্ট কার্ড বিতরণ প্রসঙ্গে তিনি জানান, সব নির্দেশনা নির্বাচন কমিশন থেকে আসে। আমরা নিদের্শনা অনুযায়ী কাজ বাস্তবায়ন করি। আগামী মাস থেকে যেহেতু যশোর সদরে স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য উপজেলাতেও কার্ড বিতরণ শুরু হবে।’

You May Also Like