বৈষম্য নিরসনে বঙ্গবন্ধু কাজ করে গেছেন || কেশবপুরে প্রাক্তন ঢাবি উপাচার্জ আরেফিন সিদ্দিক

আব্দুল্লাহ আল ফুয়াদ ॥

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আ.আ.ম.স আরেফিন সিদ্দিক বলেছেন, বৈষম্য নিরসনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সবসময় কাজ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর শিক্ষাজীবন সর্ম্পকে তোমাদের জানতে হবে। তাঁর জীবনাদর্শ বুকে ধারণ করে সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষার্থীদেরকেই ভূমিকা রাখতে হবে।

তিনি বলেন, পিছিয়ে পড়া দলিত জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায়ে সব সময় কাজ করে যাচ্ছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে দলিতদের জন্য ১ শতাংশ কোটার ব্যবস্থা করেছি। কোটার বাইরেও মেধাতালিকায় দলিত জনগোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের ভর্তি হতে হবে, সেভাবে তোমাদের গড়ে উঠতে হবে। শিক্ষার মাধ্যমে সমাজে মাথা উচু করে দাড়াতে হবে। কেশবপুর শহরের আবু শারাফ সাদেক অডিটোরিয়ামে শনিবার বাংলাদেশ দলিত মঞ্চের উদ্যোগে আম্বেদকর সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আ.আ.ম.স আরেফিন সিদ্দিককে বাংলাদেশ দলিত মঞ্চের আম্বেদকর সম্মাননা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশ দলিত মঞ্চের চেয়ারম্যান স্যামুয়েল দাস অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুস ছাত্তার, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহসভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ, বাংলাদেশ আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি এহতেশাম ফিরোজ আলম, কেশবপুরের হাসানপুর ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক জুলমত আলী, কেশবপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আশরাফ-উজ-জামান খান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কেশবপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক, কেশপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসাইন, কেশবপুর ফটোজার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের আহবায়ক কে এম কবীর হোসেন, মনিরামপুর উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মিকাইল হোসেন, মানবাধিকার কর্মী মামুনুর রশিদ লাল্টু প্রমুখ।

You May Also Like