বড়দিনের কাছাকাছি সংসদ নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ না করার অনুরোধ খ্রিস্টানদের

আব্দুর রহিম রানা ||

ডিসেম্বর ২০১৮-এর শেষ সপ্তাহে কিংবা জানুয়ারী ২০১৯-এর প্রথম সপ্তাহে ১১তম জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে আভাস দেয়া হয়েছে। বিষয়টি বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। ২৫ ডিসেম্বর খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব ‘বড়দিন’। বড়দিনের খুব কাছাকাছি সময়ে নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করলে দেশের খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের জন্য উৎসবটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা সম্ভব হবে না। বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট নির্মল রোজারি এবং মহাসচিব হেমন্ত আই কোড়াইয়া এক যুক্তবিবৃতিতে ডিসেম্বরে নির্বাচনের চূড়ান্ত তারিখ নির্ধারণকালে এই বিষয়টি বিবেচনায় রাখার জন্য নির্বাচন কমিশনের নিকট সবিনয় অনুরোধ জানিয়েছেন।

আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি জানানোর জন্য, এসোসিয়েশনের নেতারা নির্বাচন কমিশনের সাথে দেখা করার জন্য চিঠি দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, দেশে যে কোন স্থানীয় এবং জাতীয় নির্বাচনে সংখ্যালঘুদের উপর চলে নির্যাতন। ইতিমধ্যে সংখ্যালঘুদের সংগঠন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতারা নির্বাচনকালীন সময়ে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। খ্রিস্টান নেতাদের দাবী, নির্বাচনের সময় যেন কোন ধরনের সংখ্যালঘু নির্যাতন না হয়। তারা চান ২৫ ডিসেম্বর- বড়দিনের সপ্তাহে যেন জাতীয় নির্বাচনের তারিখ না দেওয়া হয়।

পিংকি, এক সন্তানের মা। ঢাকায় থাকেন। তিনি বলেন, এইবার বড়দিনে গ্রামের বাড়ি যাওয়া হবে না। নির্বাচনের সময় যে হারে সহিংসতা হয় তাতে ছোট মেয়েকে নিয়ে বাড়ি যাওয়ার সাহস পাই না। তিনি গত নির্বাচনের কথা স্মরণ করে বলেন, গত নির্বাচনে পেট্রোল বোমা, গাড়ি ভাংচূর ও সহিংসতার কথা মনে হলে আতকে উঠি। তিনিও চান, বড়দিনের সময় যেন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা না হয়। পিংকির মত এরকম অনেকে, বড়দিনে বাড়ি যাবেন না, ডিসেম্বরে নির্বাচনকালীন সময় যদি সহিংসতা হয় এই আশংকায়।

You May Also Like