যশোরে ছুরিকাঘাতে যুবক খুন, বড় ভাই আশংকাজনক

আব্দুর রহিম রানা,  যশোর ||
যশোর শহরে প্রকাশে হামলা চালিয়ে পাপ্পু হোসেন বাবু (২৫) নামে এক যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তাকে রক্ষা করতে গিয়ে বড় ভাই দিপু হোসেন (২৮) ছুরিকাহত হয়েছেন।
বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে খালধার রোড বড় বাজার এলাকার কালীদাসের চায়ের দোকানের কাছে ঘটনাটি ঘটে। সেখানে অনেক মানুষ থাকলেও হামলাকারীদের ভয়ে কেউ এগিয়ে আসতে সাহস পাননি। খুনিদের আটকে পুলিশ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।
নিহতের পিতা যশোর শহরতলী শেখহাটি বাবলাতলা এলাকার জিল্লুর রহমান জানিয়েছেন, তারা স্বপরিবারে এক সময় খালধার রোড বরফকল এলাকার কাননের বাড়ি ভাড়া থাকতেন। তখন থেকে হামলাকারীদের সাথে শত্রুতার সৃষ্টি হয় তার ছোট ছেলে খুচরা মাছ বিক্রেতা পাপ্পুর।
ঘটনার দিন পাপ্পু মাছ কেনার জন্য বড় বাজারে যান। তখন দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে তাকে ছুরিকাঘাত করে। এসময় ছোট ভাইকে রক্ষা করার জন্য এগিয়ে যান ফ্লাক্সি লোড ব্যবসায়ী দিপু হোসেন। দুর্বৃত্তরা তাকে ছুরিকাঘাতে জখম করে। স্থানীয়রা দুই ভাইকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে ডাক্তার পাপ্পুকে মৃত ঘোষণা করেন।
হাসপাতালের সার্জারী বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা.আব্দুর রহিম মোড়ল জানান, দুইজনের বুকে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মারা গেছে পাপ্পু। আর আহত দিপুর অবস্থাও আশংকাজনক। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, শহরের খালধার রোড এলাকার হবির ছেলে মাদক ব্যবসায়ী অপুর নেতৃত্বে কয়েকজন দুর্বৃত্ত এই খুন জখমের সাথে জড়িত। মূলত মাদক ব্যবসা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে পাপ্পুর সাথে অপু গংয়ের শত্রুতা চলে আসছিলো।
নিহতের স্ত্রী আসমা খাতুন জানান, তার স্বামীর হত্যাকারীদের আটক পূর্বক কঠিন শাস্তি দেয়া হোক।
যশোর সদর ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর ফিরোজ আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, তিনি খবর শোনা মাত্রই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে খুনিদের কয়েকজনকে সনাক্ত করা হয়েছে। তাদের আটকের চেষ্টা চলছে।
হাসপাতালের মর্গে দায়িত্বরত কোতোয়ালি মডেল থানার এস আই কামাল হোসেন জানান, লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে মৃতদেহ হস্তান্তর করা হবে।

You May Also Like