যশোরের চৌগাছায় ছাত্রীর শ্লীলতাহানি, প্রধান শিক্ষক আটক

আব্দুর রহিম রানা ||
যশোরের  চৌগাছায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে তাসের উদ্দীন (৫৫) নামে এক প্রধান শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার সুখপুকুরিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ বল্লভপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।
ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা ও মা জানান, তাদের মেয়ে দক্ষিণ বল্লভপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী। ৩ ডিসেম্বর সোমবার বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বিষয়ে বার্ষিক পরীক্ষা চলছিল। এসময় একটি প্রশ্ন বুঝতে না পারায় সে প্রধান শিক্ষকের শরণাপন্ন হয়। প্রধান শিক্ষকের কক্ষে কেউ না থাকার সুযোগে তিনি ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করেন।
বিষয়টি জানাজানি হলে ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে গ্রামের লোকজন মঙ্গলবার সকালে বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রধান শিক্ষককে অবরুদ্ধ করে রাখেন। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মারুফুল আলম পুলিশ পাঠিয়ে দুপুরে ওই শিক্ষককে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধার করেন এবং তার বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ দেন।
অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন চৌগাছা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) গিয়াস উদ্দিন।
তবে অভিযুক্ত ও আটক প্রধান শিক্ষক তাসের উদ্দীন আমাদের প্রতিনিধি আব্দুর রহিম রানাকে বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের কমিটি ও একটি দপ্তরি নিয়োগের বিষয় নিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলামের সঙ্গে আমার দ্ব›দ্ব চলছে। কোনো সুযোগ না পেয়ে একটি নাটক সাজিয়ে আমাকে ফাঁসিয়ে দিয়েছে প্রতিপক্ষ।’
ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনায় আমি নেতৃত্ব দেইনি। আমার সাথে প্রধান শিক্ষকের কোনো দ্বন্দ্ব নেই। উত্তেজিত জনতা প্রধান শিক্ষককে অফিস রুমে অবরুদ্ধ করলে আমি বিষয়টি ইউএনও স্যারকে জানিয়েছি।’
সুখপুকুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তোতা মিয়া বলেন, ‘আমি ঘটনাস্থলে যাইনি। শুনেছি মেয়েলি ঝামেলা নিয়ে প্রধান শিক্ষককে পুলিশ নিয়ে গেছে।’
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মারুফুল আলম জানান, বিষয়টি জানতে পেরে দ্রুত পুলিশ পাঠিয়ে অবরুদ্ধ শিক্ষককে উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় তাকে পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।
চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজিব বলেন, মেয়েটির বাবা একটি অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে নিয়মিত মামলা রেকর্ড করা হবে।

You May Also Like