সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন চান ডা. ওয়াহিদা গনি তানিয়া

কেশবপুর নিউজ ডেস্ক ||

সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সদস্য ডা. ওয়াহিদা গনি তানিয়া। এ লক্ষ্যে যশোর থেকে দলীয় মনোনয়ন জমা দিয়েছেন তিনি।

আওয়ামী পরিবারের সন্তান ডা. ওয়াহিদা গনি তানিয়ার জন্ম গাজীপুর জেলার মাজুখান গ্রামে। কিন্তু বৈবাহিক সূত্রে তার বসবাস যশোরে। জড়িত আছেন নানা সামাজিক উন্নয়ন ও সেবামূলক কর্মকাণ্ডে। ডা. ওয়াহিদা গনি তানিয়া পেশায় একজন ডাক্তার ও আইটি উদ্যোক্তা। বর্তমানে আহাদ ডায়াবেটিক, যশোর ও নড়াইল এক্সপ্রেস ডায়াবেটিক অ্যাসোসিয়েশনে কাজ করছেন। তিনি একটি সফটওয়্যার কোম্পানির চেয়ারম্যান যেটি শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে অবস্থিত।

ডা. ওয়াহিদা গনি তানিয়া স্বাচিপ ও জাতীয় মহিলা মহিলা পরিষদের সদস্য, যশোর জেলা ধ্রুবতারার যুগ্ম সম্পাদক, ও ডা. শামারুখ কল্যাণ ফাউন্ডেশনের ফাউন্ডার মেম্বার। ডা. তানিয়া দীর্ঘদিন ধরে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প করার পাশাপাশি তরুণীদের আইটি কর্মসংস্থান নিয়ে কাজ করছেন।

তিনি সমাজসেবা ও জনকল্যাণমূলক কাজে নিয়জিত থাকতে চান। নারী ও শিশুর চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি ডাক্তারদের কর্মস্থলের পরিবেশ, স্বাস্থ্যসেবার মান নিশ্চিত ও তরুণীদের উদ্যোক্তা তৈরির মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ধারা আরও বিকশিত করতে চাই।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে কাজ করে চলেছি। আমি চাই সবসময় মানুষের পাশে থেকে জনগণের সেবা করতে। ত্যাগের কোনো শেষ নেই, যদি ত্যাগের কথা বলি তবে সবচেয়ে ত্যাগী হচ্ছেন আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পরিবার হারানোর দুঃখ-কষ্ট অনুভূতি উনি বুঝবেন।

আমার একমাত্র ননদ ডা. শামারুখ মাহজাবিনকে হারিয়েছি যা ২০১৪ সালের একটি আলোচিত ঘটনা ছিল কিন্তু আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে সরে যাইনি, বিচারের জন্য আমি ও আমার পরিবার অন্যায় পন্থা অবলম্বন করিনি। সরে গিয়েছেন তারাই যারা অন্যায় পন্থা অবলম্বন করে বঙ্গবন্ধুর মুখোশ পরে আওয়ামী লীগের শিরা-উপশিরাই মিশে ডা. শামারুখের মতো প্রগতিশীল মেয়েদের হত্যা করে ক্ষমতার বলে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয় এবং আওয়ামী লীগের পরিচিতি ও সুনাম ক্ষুণ্ণ করে।

আমি এমপি হতে চাওয়ার আরও একটি কারণ হচ্ছে আমি মনে করি বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে শিক্ষিত ও বিচক্ষণ তরুণদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। আমি পেশায় একজন ডাক্তার, মানবসেবা আমার ধর্ম।

এ জন্য প্রশাসনিক সহযোগিতা থাকলে আমি আরও বৃহৎ পরিসরে মানুষের সেবা করতে পারব। বাংলাদেশকে এই উন্নয়নের মহাজোয়ারে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে ত্যাগের পাশাপাশি সুদূরপ্রসারী চিন্তা, বিচক্ষণতা, জনসেবা ও নেতৃত্ব প্রদানের যোগ্যতা থাকতে হবে।

ডা. তানিয়া বিশ্বাস করেন আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা বিচক্ষণতার সঙ্গে দলের সাম্যবস্থা রক্ষা করে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। তিনি আমাদের সবার থেকে ভালো বোঝেন এবং আমাকে মনোনয়ন দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করে দেখবেন।

You May Also Like