কেশবপুরে ৩ যুবককে চোর ভেবে চলন্ত গাড়ী থেকে নামিয়ে পেটাল এক মেম্বর

কেশবপুর নিউজ ডেস্ক ||

যশোরের কেশবপুরে নিরীহ ৩ যুবককে ভ্যান চোর ভেবে চলন্ত গাড়ী থেকে টেনে হিচড়ে নামিয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় মারপিট করে তাদের নিকট থেকে নগত টাকা ও মোবাইল  ছিনতাই করে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক ইউপি মেম্বরের বিরুদ্ধে। আহত ৩ জনের মধ্যে ১ জন কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ও অপর দুই  আহত যুবক স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছে।

জানা গেছে, শনিবার সকালে উপজেলার আওলগাতি গ্রামের আজিবার সর্দারের ছেলে আলমগীর হোসেন(২২), শেখপুরা গ্রামের রহমান শেখের ছেলে মামুন হোসেন(২৫) ও শার্শা উপজেলার জনৈকের ছেলে হাবিবুর রহমান সাগরদাঁড়ি থেকে একটি মাহেন্দ্র যোগে কেশবপুরে আসছিল। পথিমধ্যে ফোনির মোড় নামক স্থানে পৌঁছালে পূর্বে থেকে ওৎ পেতে থাকা শেখপুরা গ্রামের মেম্বর আব্দুস সবুর ও তার সহযোগী হাফিজুর চলন্ত গাড়ী থামিয়ে ঐ ৩ যুবককে টেনে হেঁচড়ে নামায়। এরপর শেখপুরা গ্রামের ওজিয়ার রহমান খোকনের একটি মটর চালিত ভ্যান চুরির মিথ্যা অভিযোগে প্রকাশ্যে তাদেরকে কাঠের চলা দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। এ সময় মেম্বর ও তার সহযোগী  ৩ জনের নিকট থেকে নহত ১৫ হাজার টাকা ও মোবাইল সেট ছিনতাই করে নেয়। পরে সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ছিনতাই হওয়া টাকা ও মোবাইল ঐ ৩ যুবক ফেরত পায়।  আহতদের মধ্যে আলমগীরকে কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত আলমগীর ও মামুন বলেন, আমাদের ৩ জনকে  আচমকা গাড়ী থেকে নামিয়ে মেম্বর সবুর ও তার সহযোগী  হাফিজুর কোন কথা শোনার আগে মারপিট শুরু করে।

এ ব্যাপারে সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্তর মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি ব্যস্ততার কথা বলে পরে কথা হবে বলে কল কেটে দেন।

You May Also Like