কেশবপুরে এক সংঘাতে শাশুড়ি-বৌমা আহত ॥ পাল্টা-পাল্টি অভিযোগ

কেশবপুর নিউজ ডেস্ক ||

যশোরের কেশবপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক সংঘাতে বৌমা -শ্বাশুড়ি আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। এ ঘটনায় বৌমা কেশবপুর থানায় ও শাশুড়ী ভালুকঘর পুলিশ ফাঁড়িতে পাল্টা-পাল্টি অভিযোগ করেছে।

জানা গেছে, রান্নার করার চুলা বানানো-কে কেন্দ্র করে সোমবার দুপুরে উপজেলার সাতবাড়িয়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম গাজীর স্ত্রী মর্জিনা বেগম (২৩) এর সাথে শ্বাশুড়ি মনোয়ারা বেগমের বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে সংঘাত শুরু হয়। এতে শাশুড়ি ও বৌমা গুরুতর আহত হয়। প্রতিবেশিরা উভয়কে উদ্ধার করে কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

বৌমা মর্জিনা বেগম তার অভিযোগে উল্লেখ করেন, বিবাহের পর থেকেই স্বামী রফিকুল ইসলাম গাজী, শ্বাশুড়ি মনোয়ারা বেগম, চাচাত শ্বশুর শহিদুল ইসলাম গাজী যৌতুকের দাবী এনে বিভিন্ন সময়ে তাকে মারপিঠ করাসহ অমানুষিক নির্যাত চালাতো। ঘটনার দিন দুপুরে ২ লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবী এনে স্বামী পক্ষের লোকজন তাকে মারপিট করে স্বর্ণের রুলি, গলার চেইন, কানের দুল ও পায়ের নুপুর জোরপূর্বক ছিনিয়ে নিয়ে বাড়ি থেকে এক কাপড়ে রাস্তায় বের করে দেয়।

শাশুড়ি মনোয়ারা তার অভিযোগে উল্লেখ করেন, সোমবার দুপুরে চুলা তৈরি করাকে কেন্দ্র করে তার বৌমা মর্জিনা বেগম দাঁ দিয়ে তার বাম হাতে কোপ মেরে আহত করে।

You May Also Like