শিশু আফরিনার হার্টের অপারেশনের জন্য আর্থিক সাহয্য চাইলেন অসহায় বাবা-মা

কেশবপুর নিউজ ডেস্ক ||

অর্থের অভাবে হার্টের অপারেশন করতে না পারায় কেশবপুরের শিশু আফরিনার (৫) অবস্থা দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে। একমাত্র  সন্তানকে বাঁচতে কামলা খেটে খাওয়া মা -বাবা  মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও অপারেশনের টাকা যোগাড় করতে না পেরে সন্তানের চিন্তায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

শিশু আফরিনা কেশবপুর উপজেলার কন্দর্পপুর গ্রামের দিন-মজুর আজিজুর রহমান, মা রেশমা খাতুনের একমাত্র সন্তান। বয়স যখন ২ তখন আফরিনার এ রোগ ধরা পড়ে। আজিজুর রহমানের ঘর বাঁধার জায়গা ছাড়া কোন জমি নেই। কামলা খেটেই সংসার চালাতে হয়। রেশমা খাতুন একমাত্র বুকের ধন মেয়েকে বুকে জড়িয়ে ধরে সমাজের দানশীল ব্যক্তিদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে। মেয়ের ভবিষ্যত চিন্তায় মা বাবার চোখে সব সময় পানি গড়িয়ে পড়ছে।

আজিজুর রহমান জানায়, মেয়ে অবস্থা দিন দিন অবনতি ঘটায় শিশু বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডা. মো. আবিদ হোসেন মোল্যার নিকট নিয়ে গেলে তিনি ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হসপিটাল এন্ড রিসার্স ইনস্টিটিউটের ডা. মো. রোকনুজ্জামান সেলিমের নিকট পাঠান। তিনি পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে জানিয়েছেন আফরিনার হার্টের ছিদ্রের অপারেশন করতে হবে। এ চিকিৎসায় সাড়ে ৫ লাখ টাকা খরচ হবে বলে বাবা আজিজুর রহমানকে জানানো হয়েছে। এত টাকা জোগাড় করা বাবা আজিজুর রহমানের পক্ষে আদৌও সম্ভব নয়।

কামলা খেটে খাওয়া বাবা আজিজুর রহমান ও মা রেশমা খাতুন একমাত্র সন্তানের জীবন বাঁচানোর জন্য ভিটেবাড়ি বিক্রি করলেও অপারেশনের টাকা জোগাড় হবে না বলে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। যে কারণে তাঁরা একমাত্র সন্তানের জীবন বাঁচানোর জন্য বিত্তবান ব্যক্তিদের সহয়াতা চেয়েছেন।

সহায়তা পাঠানোর ঠিকানা: ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, কেশবপুর শাখা, সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর ২০৫০৩৮৮০২০০২৪৪৮০৬।

এছাড়াও দানশীল ব্যক্তিরা আজিজুর রহমানের ০১৯৮২৮৫৪৩৬৬ (বিকাশ) নম্বর মোবাইলে যোগাযোগ করতে পারেন।

You May Also Like