কেশবপুরে ভিটে ছাড়া করতে অসহায় বোনের উপর সন্ত্রাসী হামলা ও অমানুষিক নির্যাতন

কেশবপুর নিউজ ডেস্ক ||

যশোরের কেশবপুরে অসহায় বোনকে  ভিড়ে ছাড়া করতে সম্পদলোভী  ভাই তার ভাড়া করা সন্ত্রাসী  দিয়ে  ভাতের  থাল থেকে টেনে হেঁচড়ে  উঠিয়ে নিয়ে রাস্তায় ফেলে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এলাকাবাসী তাকে  উদ্ধার করে কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

হাসপাতাল ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ভাই এর জমি ক্রয় করাকে কেন্দ্র করে উপজেলার ভালুকঘর গ্রামের মৃত জামাল মুন্সির অসহায় মেয়ে জাহানারা বেগমকে ভিটেবাড়ী থেকে বিতাড়িত করতে তার আপন ভাই সম্পদলোভী  ইমাম উদ্দীন ভাড়া করা সন্ত্রাসী দিয়ে একর পর এক বোন  জাহানারার উপর অকারনে হামলা, মামলা, মারপিটসহ তাকে জানে মারার হুমকি দিয়ে আসছে। এরই সূত্র ধরে সোমবার বিকেলে হঠাৎ ইমাম উদ্দীন, তার ছেলে সাঈদ, বাসার, শহিদসহ ১০/১২ জন ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিয়ে বোন জাহানারার ঘরে ঢুকে তাকে ভাতের থাল থেকে টেনে-হেচড়ে উঠিয়ে নিয়ে রাস্তার উপর ফেলে অমানুষিক নির্যাতন চালায়। যে নির্যাতন  মধ্যযোগীয় বর্বরতাকেও হার মানিয়েছে। এলাকাবাসী হামলাকারীদের কবল থেকে জাহানারাকে উদ্ধার করে কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

হাসপাতালের ফ্লোরে ভর্তি জাহানারা এই প্রতিনিধিকে জানান, বাপ মারা যাওয়ার পর বৃদ্ধ মাকে নিয়ে তিনি বাপের ভিটায় রয়েছে। পরের বাড়ীতে কামলা খেটে, সেই কষ্টের টাকা দিয়ে আরেক ভাইয়ের জমি ক্রয় করার পর থেকে ভাই ইমাম উদ্দীন তাকে ভিটে ছাড়া করতে একের পর এক ষড়যন্ত্র শুরু করে। এই ঘটনার  কয়েক মাস আগে ইমাম উদ্দীন তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে  তাকে গাছের সাথে বেঁধে প্রকাশ্যে দিবালোকে অমানুষিক  নির্যাতন চালায় এবং যখন-তখন অকারনে তাকে হত্যার হুমকি দিতে থাকে।

তার সম্পদলোভী ভায়ের ভয়ে বর্তমানে তিনি চরম অতংকের মধ্যে রয়েছে বলেও তিনি জানান।

এ ব্যাপারে  ইমাম উদ্দীনের কাছে জানতে চাইলে তিনি মারপিটের কথা শিকার করে বলেন, বোন জাহানারা প্রথমে তাদের উপর হামলা চালিয়েছিল।

You May Also Like